• ২০২২ অগাস্ট ১৪, রবিবার, ১৪২৯ শ্রাবণ ৩০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২৯ অপরাহ্ন
  • বেটা ভার্সন
Logo
  • ২০২২ অগাস্ট ১৪, রবিবার, ১৪২৯ শ্রাবণ ৩০

কোন ফ্রিজের কত দাম

  • প্রকাশিত ৮:০৬ অপরাহ্ন মঙ্গলবার, Jun ২৮, ২০২২
কোন ফ্রিজের কত দাম
ছবি-সংগৃহীত
নিজস্ব প্রতিবেদক

দীর্ঘদিনের পরিকল্পনা শেষে অবশেষে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত। ঈদে বাসায় আসবে নতুন ফ্রিজ। কিন্তু কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেন না যে কোন ব্র্যান্ডের ফ্রিজ কিনবেন? বাজেটের সঙ্গে আছে পণ্যটি দীর্ঘমেয়াদি হবে কি না, এই ভাবনাও। একটু দিকনির্দেশনা ভালো মানের ফ্রিজ কিনতে সহায়তা করবে। জেনে নিন দেশের বাজারে থাকা বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ফ্রিজের দরদাম।

১. ওয়ালটন

দেশি পণ্যের দিকে ঝুঁকছেন সবাই। মানে ও গুণে ওয়ালটন ফ্রিজ তাই অনেকের পছন্দ। বাজারে এখন ১৮টি মডেলের ওয়ালটন ফ্রিজার বা ডিপ ফ্রিজ রয়েছে। সেগুলোর ধারণক্ষমতা ১২৫ থেকে ৩০০ লিটার পর্যন্ত। দাম ২২ হাজার ৫০০ টাকা থেকে ৪৬ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে। ওয়ালটন ফ্রিজারে এক বছরের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা আছে। আর কম্প্রেসরে রয়েছে ১২ বছরের গ্যারান্টি। সঙ্গে থাকছে পাঁচ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা। সারা দেশে ৭৭টি সার্ভিস পয়েন্ট রয়েছে ওয়ালটনের।

২. ট্রান্সটেক

ট্রান্সটেক ব্র্যান্ডের বিভিন্ন রকম ফ্রিজ আছে বাজারে। ১৬২ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ২৮ হাজার ৫০০ টাকা, ২১২ লিটার ৩২ হাজার টাকা ও ২৫২ লিটার ৩২ হাজার ৫০০ টাকা। ২৫২ লিটারের আরেকটি মডেলের ডিপ ফ্রিজ পেয়ে যাবেন ৩৩ হাজার টাকায়। ২৬২ লিটারের ফ্রিজারের দাম ৩৭ হাজার ৫০০ টাকা। আর ৩১২ লিটারের দাম ৪১ হাজার ৫০০ টাকা।

৩. স্যামসাং

ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন রঙের ফ্রিজ এনেছে স্যামসাং। ৩৩০ লিটার আপরাইট ডিপফ্রিজের রং আছে তিনটি—সিলভার, ব্ল্যাক ও শাইনি ব্ল্যাক। দেশজুড়ে স্যামসাংয়ের বিভিন্ন অনুমোদিত শোরুমে আপরাইট ফ্রিজার পাওয়া যাচ্ছে ৯৫ হাজার ৯০০ টাকায়। ডিজিটাল ইনভার্টার কম্প্রেসর ব্যবহার করছে স্যামসাং, যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সাতটি ভিন্ন ধাপে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে। কম্প্রেসরের ওপর রয়েছে ১০ বছরের ওয়ারেন্টি।

৪. প্যানাসনিক

প্যানাসনিকের ১৪২ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ২৯ হাজার ৪০০ টাকা। ১৪৮ লিটার ৩৮ হাজার টাকা ও ২৫২ লিটার ৩২ হাজার ৫০০ টাকা। ২৫২ লিটারের আরেকটি মডেলের দাম ৩৩ হাজার টাকা। ২৯০ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম পড়বে ৪৮ হাজার ৪০০ টাকা।

৫. শার্প

শার্পের ১১৮ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম ২২ হাজার ৯০০ টাকা। ১৬০ লিটার ২৮ হাজার ৫০০ টাকা আর ১৬০ লিটারের আরেকটি মডেলের দাম ২৭ হাজার ৯০০ টাকা। ২২০ লিটারের দাম ৩৩ হাজার ৯০০ টাকা।

৬. এলজি

এলজির ১৩৮ লিটার ডিপ ফ্রিজের দাম ৩৯ হাজার ৯০০ টাকা। ১৯০ লিটার ৪৪ হাজার ৫০০ টাকা। ১৯০ লিটারের আরেকটি মডেলের দাম ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা।

৭. ওয়ার্লপুল

ওয়ার্লপুলের ১৩৮ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম ৩৭ হাজার টাকা। ২১২ লিটার ৫৩ হাজার ৫০০ টাকা এবং ২৮৫ লিটার ৪৬ হাজার ৯০০ টাকা।

৮. সিঙ্গার

সিঙ্গারের ১৩৮ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম ২৬ হাজার ৫৯০ টাকা, ১৬৪ লিটার ৪৩ হাজার ৩৯০ টাকা, ২১১ লিটার ৩৩ হাজার ১৯০ টাকা, ২৮৬ লিটার ৩৯ হাজার ২৯০ টাকা ও ৩৮০ লিটার ৪৭ হাজার ৩৯০ টাকা।

৯. মিনিস্টার ফ্রিজ

মিনিস্টার ফ্রিজের দাম শুরু হয়েছে ১৬৫ লিটার ২০ হাজার ৮৬০ টাকা থেকে। ২৪২ লিটারের ফ্রিজের বাজারমূল্য ২৭ হাজার ৯০০ টাকা। এর চেয়ে এক সাইজের বড় কিনতে পারবেন ২৯ হাজার ৪০০ টাকায়। ৩৫৫ লিটার মিনিস্টার ফ্রিজের বর্তমান দাম ৩৪ হাজার ৯০০ টাকা।

১০. ইলেক্ট্রা

ঈদ উপলক্ষে স্যামসাং ইলেক্ট্রা ডিপ ফ্রিজে থাকে সব সময় বিশেষ ছাড়। কালো ও কফি রঙের ১০০ লিটারের ডিপ ফ্রিজের দাম ২১ হাজার ৯০০ টাকা। ১৫৫ লিটার ২৮ হাজার ৯০০ টাকা। ১৬২ লিটারের ডার্ক গ্রে রঙের ডিপ ফ্রিজের দাম ২৮ হাজার ৯০০ টাকা। ২০০ লিটারের দাম ৩৪ হাজার ৯০০ টাকা। ২৬২ লিটারের একই রঙের ডিপ ফ্রিজটি ১ হাজার টাকা ছাড়ে ৪০ হাজার ৯০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। ৩১২ লিটারের ফ্রিজার ছাড়ের পর দাম ৪৫ হাজার ৯০০ টাকা। ৫০০ লিটারের ফ্রিজারের ছাড়কৃত বর্তমান দাম ৬৭ হাজার ৯০০ টাকা।

কিস্তিতে ফ্রিজ কিনতে চাইলে

কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার ক্ষেত্রে তিন মাস মেয়াদের হলে ফ্রিজের প্রকৃত দাম অনুযায়ী আপনাকে টাকা পরিশোধ করতে হবে। অর্থাৎ বাড়তি কোনো ইন্টারেস্ট দিতে হবে না। কিন্তু ৬, ১২ বা ২৪ মাসের কিস্তিসুবিধা নিতে হলে আপনাকে প্রকৃত দামের ওপর কিছু ইন্টারেস্ট প্রদান করতে হবে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এটি ৮ থেকে ১২ শতাংশের মধ্যে হয়ে থাকে। এ বিষয়ে বাটারফ্লাইয়ের সহকারী ব্যবস্থাপক (পণ্য) বিপুল কুমার দাস বলেন, ‘কিস্তিতে ফ্রিজ কেনা জটিল কিছু নয়। প্রায় প্রতিটি ব্র্যান্ডই নিয়ম অনুযায়ী সহজ কিস্তিতে ফ্রিজ কেনার সুযোগ দিচ্ছে। কমপক্ষে ৩০ শতাংশ ডাউনপেমেন্টে কিস্তিতে ফ্রিজ কিনতে পারবেন। এ জন্য লাগবে এনআইডি কার্ডের ফটোকপি, দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি, সর্বশেষ মাসের ইউটিলিটি বিলের (বিদ্যুৎ, পানি অথবা গ্যাস) কপি এবং দুজন গ্যারান্টার।’

সর্বশেষ